অধস্তন আদালতের কর্মচারীদেরকে বাংলাদেশ জুডিসিয়াল সার্ভিস বেতন স্কেল এর আলোকে বেতন ভাতা প্রদান, ব্লক পদ বিলুপ্ত করে যুগোপযোগী পদ সৃজন ও পদন্নোতির সুযোগ রেখে অভিন্ন নিয়োগ বিধি প্রনয়নের দাবিতে বাংলাদেশ বিচার বিভাগীয় কর্মচারি এসোসিয়েশন ভোলা জেলা শাখার উদ্যেগে ৩ দফা দাবি বাস্তবায়ন চেয়ে ভোলা জেলা প্রশাসক মোঃ মাসুদ আলম ছিদ্দিক এর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্বারকলীপি প্রদান করা হয়েছে।

গতকাল বুধবার সকাল ১০টায় জেলা আদালত প্রাঙ্গন থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদিক্ষন শেষে জেলা প্রশাসক কার্যলয়ে স্বারকলীপি প্রদান করে বাংলাদেশ বিচার বিভাগীয় কর্মচারি এসোসিয়েশন ভোলা জেলা শাখার কর্মচারিরা। এসময় বক্তারা বলেন, দেশের অধস্তন আদালতের কর্মচারীদেরকে জুডিশিয়াল সার্ভিস বেতন স্কেল এর আলোকে বেতন ভাতা প্রদান, পদ বিলুপ্ত করে যুগোপযোগী সৃজনশীল ও পদোন্নতির সুযোগ রেখে বিভিন্ন নিয়োগ বিধি প্রণয়ন করতে হবে।

আমরা বাংলাদেশ সরকারের বিচার বিভাগীয় অধস্তন আদালতের কর্মরত বিশেষ সহায়ক কর্মচারী। বিচার বিভাগের কর্মচারী হওয়া সত্বেও সংশ্লিষ্ট আইন মন্ত্রণালয়ে কিংবা উচ্চ আদালতের কর্মচারীদের সুযোগ-সুবিধা প্রদান না করে আমাদেরকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় কর্মচারী হিসেবে বিবেচনা করা হয়। বিচার বিভাগ ১ নভেম্বর ২০০৭ সাল থেকে বিচার বিভাগ পৃথক করা হয় এবং এই ধারাবাহিকতায় ২০০৯ সালে সরকার কর্তৃক বিচারকদের জন্য বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস বেতন স্কেল নামে একটি স্বতন্ত্র বেতন স্কেল প্রদান করেন।

আমরা একই আদালতে বিচার কার্য মাননীয় বিচারক মহোদয়গণের সহায়তা কর্মচারী হিসেবে কর্ম সম্পাদন অর্থ সহ সকল সুযোগ সুবিধা হতে বঞ্চিত হয়ে আসছি। আদালতের কর্মচারীগণ সমাজে বিষেশ মর্যদাপূর্ণ ব্যাক্তি হিসেবে বিবেচিত হওয়া সত্বেও বেশীরভাগ কর্মচারীরা-ই আর্থিকভাবে মানবেতর জীবন যাপন করে থাকি। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, উপদেষ্টা মোঃ মঞ্জুর মোর্শেদ প্রশাসনিক কর্মকর্তা, জেলা জজ আদালত, মৃনাল কান্তি দাস হিসাব রক্ষক, সিজেএম আদালত সভাপতি (ভারঃ) মোঃ আক্রাম আলী,প্রধান তুলনাকারক জেলা জজ আদালত,সহ-সভাপতি বিকাশ চন্দ্র মজুমদার কম্পিউটার অপারেটর, সিজেএম আদালত, সহ-সভাপতি মুসরাত জেরীন প্রধান তুলনাকারক, সিজেএম আদালত, সাধারণ সম্পাদক মোঃ নাজিম উদ্দিন ক্যাশিয়ার, সিজেএম আদালত, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মোঃ ফেরদাউস মাহমুদ অফিস সহকারী, জেলা জজ আদালত,যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মোঃ মামুন হোসেন স্টেনোটাইপিষ্ট, সিজেএম আদালত,যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মোঃ আবুল হাসেম টাইপিস্ট/কপিস্ট, সিজেএম আদালত দপ্তর সম্পাদক মোঃ আমজাদ হোসেন রেকর্ড সহকারী, সিজেএম আদালত,প্রচার সম্পাদক মোঃ আমজাদ হোসেনসহ প্রমুখ।

Leave a comment