ভোলার চরফ্যাশন উপজেলায় করোনাভাইরাসের ঝুঁকি এড়াতে জনসমাগম, সামাজিক দূরত্ব মেনে না চলায়, মাস্ক না পরায় ও ডিলিং লাইসেন্স না থাকার অপরাধে ১৪ জনকে ৪৯ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করেছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা। গতকাল সোমবার (১৬ নভেম্বর) সকাল ১টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত চরফ্যাশন বাজারে মহামারী করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে ও ডিলিং লাইসেন্স না থাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত এ অর্থদণ্ড প্রদান করেছেন ৷ দণ্ডিত ১৪ জনের মধ্যে চরফ্যাশন বাজারের ব্যবসায়ী, ক্রেতা ও সাধারন জনতা রয়েছে৷

সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা করা হয়েছে৷ ডিলিং লাইসেন্সে না থাকায় ৮জনকে ৪৭হাজার টাকা আর মাক্স না পরায় ৬জনকে ২হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। চরফ্যাশন উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ১৪ জনকে অর্থদণ্ডের সত্যতা নিশ্চিত করে ভোলা টাইমস্ কে জানান, সরকারী নির্দেশনা অনুযায়ী জনসাধারনকে স্বাস্থ্য সুরক্ষা মেনে চলতে ও সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে আমি এ অভিযান পরিচালনা করেছি এবং এমন অভিযান অব্যাহত থাকবে। দেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে কিন্তু কিছু সংখ্যক জনগনের অবহেলা ও স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়ে তাদের অগ্রাহ্যমূলক আচরণ অন্য সকলকে স্বাস্থ্য সুরক্ষা না মানার বিষয়কে উৎসাহিত করে।

তিনি আরো বলেন, কিন্তু দুঃখের সহিত বলতে হয় যে, চরফ্যাশন উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে যখন প্রাণঘাতী ব্যাধি করোনা প্রতিরোধে স্বাস্থ্য সুরক্ষা মেনে চলতে ,বাজারে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে ও ডিলিং লাইসেন্স নিশ্চিত করতে এ অভিযান পরিচালনা করা হলে বাজার সমিতির কিছু অতি উৎসাহী নেতৃবৃন্দ সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে ও সরকারের আইনকে তোয়াক্কা না করে তাদের ব্যাক্তি স্বার্থে কিছু নিরিহ মানুষকে ভুল বুঝিয়ে উপজেলা প্রশাসনের বিরুদ্ধে একটি ষড়যন্ত্র ।

Leave a comment