বিনোদন ডেস্ক ॥

* করোনায় আক্রান্ত ও সুস্থতার পরের খবর কী?

অনেক শিল্পীই কাজে নেমেছেন। আপনি কবে থেকে শুরু করবেন?

আমার খুব কাছের অনেকেই কাজ করছেন। আমারও কাজের তাগিদ আছে। কিন্তু শরীরিক দুর্বলতা ও মায়ের দাবি পূরণ করতে গিয়ে এখনও কাজে নামতে পারছি না। পরিবারের কেউ বাংলাদেশে নেই। বেড়াতে গিয়েছিল অস্ট্রেলিয়ায়। লকডাউনে আটকে গেল বছরখানেক হয়ে গেছে। দীর্ঘদিন আমি একাই। সে জন্য মা বলেছেন, সার্বিক পরিস্থিতি ঠিক না হওয়ার আগ পর্যন্ত যেন শুটিং না করি। যুগ ও সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে তো আপনার কাজে নামা উচিত…সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এবং অন্যান্য মাধ্যমে আমার ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষী প্রায়ই বলেন, কেন নতুন কাজ শুরু করছেন না। তাদের এ কথার জবাব দিতে পারছি না। মনটাও ভালো নেই। সংক্রমণের সময় পরিবারের কেউ পাশে ছিলেন না। তাই সাহসও পাচ্ছি না কিছু করার। আগামী দু-তিন মাস শীতের কারণে সংক্রমণ বাড়বে বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে। তার মানে শুটিংয়ে ফিরতে আরও অনেক দেরি হবে আপনার?

হ্যাঁ, মনে হচ্ছে না এ বছর আর শুটিং করতে পারব।

* ঘরবন্দি জীবনে কীভাবে সময় কাটাচ্ছেন?

অনেক সময় পেয়েছি। পরিবারকে সময় দেয়ার মতো প্রচুর সময় পেয়েছি কিন্তু পরিবার তো কাছে নেই। তবে নতুন একটি ছবির জন্য আমি গল্প লিখেছি। চিত্রনাট্যেরের কাজ চলছে। সব ঠিকঠাক করে সবাইকে জানাব।

* আপনার নিজস্ব প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের খবর কী?

করোনার কারণে আপাতত কাজ বন্ধ রেখেছি। তবে ঘরোয়াভাবে যে কাজগুলো সম্ভব বাসায় করছি।

* এ সময়েও তো আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেয়েছেন?

এটি একটি খুশির সংবাদ, ইন্দোস ভ্যালি ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল-২০২০-এ ‘বিজলি’ ছবির জন্য আমাকে সেরা অভিনেত্রী হিসেবে ভূষিত করা হয়েছে। নোলকের জন্যও আমি একটি পুরস্কারে ভূষিত হয়েছি।

Leave a comment