1. mdmf@gmil.com : আশিষ আচার্য্য : আশিষ আচার্য্য
  2. asrapur121@gmail.com : আশরাফুর রহমান ইমন : আশরাফুর রহমান ইমন
  3. borhanuddin121@gmail.com : বোরহানউদ্দিন প্রতিনিধি : বোরহানউদ্দিন প্রতিনিধি
  4. admin@bholatimes24.com : Bhola Times | Online Edition : Bhola times Online Edition
  5. ssikderreport@gmail.com : চরফ্যাশন প্রতিনিধি : চরফ্যাশন প্রতিনিধি
  6. dowlatkhan@gmail.com : দৌলতখান প্রতিনিধি : দৌলতখান প্রতিনিধি
  7. easin21@gmail.com : ইয়াছিনুল ঈমন : ইয়াছিনুল ঈমন
  8. gourabdas121@gmail.com : গৌরব দাস : গৌরব দাস
  9. hasanpintu2010@gmail.com : লালমোহন প্রতিনিধি : লালমোহন প্রতিনিধি
  10. iqbalhossainrazu87@gmail.com : ইকবাল হোসেন রাজু : ইকবাল হোসেন রাজু
  11. iftiazhossen5@gmail.com : ইসমাইল হোসেন ইফতিয়াজ : ইসমাইল হোসেন ইফতিয়াজ
  12. mdmasudalom488@gmail.com : Afnan masud : Afnan masud
  13. mnoman@gmail.com : এম,নোমান চৌধুরী : এম,নোমান চৌধুরী
  14. monpura@gmail.com : মনপুরা প্রতিনিধি : মনপুরা প্রতিনিধি
  15. najmu563@gmail.com : নাজমুল মিঠু : নাজমুল মিঠু
  16. najrul125@gmail.com : নাজরুল ইসলাম সৈারভ : নাজরুল ইসলাম সৈারভ
  17. news.bholatimes1@gmail.com : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
  18. news.bholatimes@gmail.com : News Room : News Room
  19. nirob121@gmil.com : ইউসুফ হোসেন নিরব : ইউসুফ হোসেন নিরব
  20. abnoman293@gmail.com : এম নোমান চৌধুরী চরফ্যশন প্রতিনিধি : এম নোমান চৌধুরী চরফ্যশন প্রতিনিধি
  21. nhohechowdhury@gmail.com : OHE CHOWDHURY NAHID : OHE CHOWDHURY NAHID
  22. mdmasudaom488@gmil.com : তজুমদ্দিন প্রতিনিধি : তজুমদ্দিন প্রতিনিধি
  23. sanjoypaulrahul11@gmail.com : sanjoy pal : sanjoy pal
  24. sohel123@gmail.com : সোহেল তাজ : সোহেল তাজ
  25. btimes536@gmail.com : সৌরভ পাল : সৌরভ পাল
  26. bholatimes2010@gmail.com : স্টাফ রিপোর্টার : স্টাফ রিপোর্টার
শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৩৪ পূর্বাহ্ন

বিধ্বস্ত গাজা যেন ধ্বংসস্তূপের সমুদ্র

স্টাফ রিপোর্টার ॥
  • সময়: রবিবার, ২৩ মে, ২০২১

দৈনিক ভোলা টাইমস্ ঃঃ গাজার বাতাসে এখন শুধুই লাশপচা দুর্গন্ধ। ১১ দিনের ইসরাইলি হামলায় বিধ্বস্ত শহরটি। ব্যস্ততম শহরের ঘনবসতিগুলো এখন যেন ইট-পাথরের মরুভূমি। পানি নেই, খাবার নেই-বিদ্যুৎবিহীন এলাকাগুলোতে ‘মহামারির’ মতো ছড়িয়ে পড়েছে চরম মানবিক বিপর্যয়। ইসরাইলের কামানের গোলা থেকে বেঁচে যাওয়া গাজাবাসীর জীবনযুদ্ধের এমন কিছু করুণ খণ্ডচিত্রই তুলে ধরেছে কয়েকটি সংবাদমাধ্যম।

ইসরাইল ও হামাসের যুদ্ধবিরতির প্রথম দিন। গাজা শহরের উপকণ্ঠে একাকী দাঁড়িয়ে যুবক সামি। করুণ দৃষ্টিতে তিনি তাকিয়ে আছেন একটি খালি জায়গার দিকে।ওখানেই তার বোনের বাড়িটি ছিল। এখন সেখানে শুধু ইট-পাথরের গুঁড়িয়ে যাওয়া স্তূপ। তার নিচেই চাপা পড়ে আছে সামির স্বজনরা।

তার ঘন নিঃশ্বাসের সঙ্গে গাল বেয়ে নিচের দিকে গড়িয়ে পড়ছে অশ্রু। ইসরাইলি বিমান হামলায় তার পরিবারের ১২ সদস্য প্রাণ হারিয়েছেন। তিনি আতঙ্কে আছেন। আবার কখন যেন শুরু হয় সন্ত্রাসী বাহিনীর হামলা। বললেন, ‘ওরা আমাদের স্বাভাবিক জীবন ফিরিয়ে দেবে না।’

গাজার ক্ষতি পূরণ হবে না। ইসরাইলি বিমান হামলায় ৬৬ শিশুসহ ২৩০ জনেরও বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। এক হাজারের বেশি আবাসিক ও বাণিজ্যিক ভবন ধ্বংস হয়েছে। ৭৭ হাজার মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছেন। ১৭টি হাসপাতাল ও ক্লিনিক, ৫৩টি স্কুল ভবনও গুঁড়িয়ে দিয়েছে তারা। পানি, বিদ্যুৎ ও সুয়ারেজ লাইনের অবকাঠামো উপড়ে ফেলেছে তারা। সামি আবুল ওউফ বলেন, ‘যখনই গাজায় যুদ্ধ হয় তখনই তা আমাদের ২০ বছর পেছনে ফেলে দেয়। যখনই আমরা অর্থনৈতিকভাবে চাঙ্গা হতে শুরু করি, তখনই ওরা পরিকল্পিতভাবে আমাদেরকে পেছনে ফেলে দেয়।’ যুদ্ধবিরতি সত্ত্বেও পূর্ব জেরুজালেম এবং দখলকৃত পশ্চিম তীরে শুক্রবার স্থবিরতা অব্যাহত ছিল।ইসরাইলি পুলিশ শুক্রবারের নামাজের পর আল-আকসা মসজিদ প্রাঙ্গণে অভিযান চালিয়েছে। যুদ্ধবিরতির পর কেউ কেউ স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে চেষ্টা করছেন। সমুদ্র সৈকতে বেড়াতে এসেছেন ২৫ বছরের যুবক শাহেদ আবু খোসা। তিনি বললেন, ‘আমি আশা ছাড়িনি। আমরা একদিন বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবই।’ মুদি দোকানি মোহাম্মদ কোল্লাকের বয়স ২৪। গত রোববারের আক্রমণে ধ্বংস হওয়া নিচে আটকে পড়েছিলেন তিনি। কোনোরকমে প্রাণে বেঁচে গেলেও হাত হারিয়ে পঙ্গু তিনি।

তার পরিবারের অধিকাংশ সদস্যকেই হারিয়েছেন সেদিন। এখন আর থাকার জায়গা নেই। বোমা হামলায় ধসে যাওয়া বাড়ির ওই ধ্বংসাবশেষই তার একমাত্র আশ্রয়।তিনি বললেন, ‘এই যুদ্ধবিরতির কোনো মানে হয় না। ওরা আবার আক্রমণ করবে। আমাদের অর্থনীতি আর পুনর্নিমাণ সম্ভব হবে না।’ রেস্তোরাঁ মালিক মুনির সালের বয়স ৫৩। তিনি বললেন, ‘হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর ভবিষ্যদ্বাণী অক্ষরে অক্ষরে ফলে যাবে।আল-আকসার জন্য আমাদের যা কিছু আছে, ত্যাগ করতে হবে।’ এক মধ্যবয়সি ফিলিস্তিনি একটি বিশাল আকারের পুকুরপাড়ে দাঁড়িয়েছিলেন, যেখানে কোনো পানি নেই।

জানালেন এখানেই তার বাড়িটি ছিল। বোমার আঘাতে তার ভবনটি ধ্বংস হয়ে ওখানে পুকুরের মতো গর্ত হয়ে গেছে। তিনি বললেন, ‘আমাদের যুদ্ধ এখনো শেষ হয়নি। সামনে বহু পথ বাকি।’

শেয়ার করুন:

আরো সংবাদ:
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৪ - ২০২১ © এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ।
Developer By Zorex Zira