দৈনিক ভোলা টাইমস্ :: ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের কারণে ভোলার লালমোহন উপজেলাসহ ৪ উপজেলা গত ৩দিন ধরে অন্ধকারে রয়েছে। ইয়াসের প্রবল বাতাসের কারণে পল্লী বিদ্যুতের লাইনের তার ছিড়ে যাওয়ায় ২৫ মে থেকে লালমোহন, বোরহানউদ্দিন, চরফ্যাশন ও তজুমদ্দিন উপজেলায় বিদ্যুৎ নেই। মাঝে লাইন মেরামত করে কিছু সময়ের জন্য বিদ্যুৎ দেওয়া হলেও কয়েক মিনিট পর পর তা আবার বন্ধ হয়ে যায়।

বৃহস্পতিবার আবার বিদ্যুৎ সরবরাহে নতুন করে সমস্যা দেখা দিয়েছে। দুপুরের দিকে ভোলার বোরহানউদ্দিনে অবস্থিত ২২৫ মেগাওয়াট পাওয়ার প্লান্ট এর অভ্যন্তরে ৪৬/৬০ এমভিএ পাওয়ার ট্রান্সফরমারটি হঠাৎ বন্ধ হয়ে যায়। এর ইনকামিং ব্রেকার আর্থ ফল্টএ ট্রিপ করে। এতে পুরোপুরি ভোলার দক্ষিণের এ ৪ উপজেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়।যদিও পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লালমোহন জোনাল অফিসের ডিজিএম শাহিন আহসান জানান, বর্তমানে পাওয়ার প্লান্ট কর্তৃপক্ষ ট্র্যান্সফরমারটি মেগার করে চালুর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। এটি মেরামত করতে প্রায় ৬/৭ ঘন্টা সময় লাগতে পারে। বোরহানউদ্দিনের ট্রান্সপরমারটি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বোরহানউদ্দিন, চরফ্যাশন, লালমোহন, তজুমদ্দিন উপজেলায় ২ লাখ ১০ হাজার পল্লী বিদ্যুত সমিতির গ্রাহকের বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ আছে। বন্ধ এলাকায় মাইকিং করে এবং গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের মোবাইলে এসএমএস করে বিষয়টি জানানো হয়েছে।এদিকে গত ৩দিন বিদ্যুৎ না থাকায় বাসা বাড়িতে নানান সংকট দেখা দিয়েছে। পানির মটর বন্ধ হওয়ায় শহরবাসীর পানি সংকট দেখা দিয়েছে। ফ্রিজের খাবার নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

ব্যবসা বাণিজ্যেও বিদ্যুতের অভাবে ধ্বস নেমেছে। এমনিতেই স্বাভাবিক সময়ে নিয়মিত লোডশেডিং এর কারণে পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহকরা অতিষ্ঠ। এই অবস্থা বৃহস্পতিবার রাতের মধ্যে স্বাভাবিক না হলে জনজীবন আরো বিপর্যস্ত হয়ে পরবে।

Leave a comment