দেরিতে হলেও চলতি বছরের এইচএসসি পরীক্ষা আয়োজনের প্রস্তুতি শুরু করেছে শিক্ষাবোর্ডগুলো। ইতোমধ্যে করোনার ঝুঁকি এড়াতে পরীক্ষার কেন্দ্র নির্বাচনের কাজও শুরু হয়েছে। ঢাকা শিক্ষাবোর্ড সূত্র জানিয়েছে ২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষার তালিকাভুক্ত সব কেন্দ্রকে কোভিড স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা নিতে হবে।

করোনা মহামারীর থাবায় গত একবছরের বেশি সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ। এ পরিস্থিতিতে গত বছরের এইচএসসি, জেএসসি ও প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি। তবে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে সব কেন্দ্রে ২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষা নেয়া হবে বলে জানিয়েছে ঢাকা বোর্ড। ইতোমধ্যে পরীক্ষা নেয়ার প্রস্তুতিও শুরু হয়েছে। এ পরীক্ষার নতুন কেন্দ্র স্থাপন ও কেন্দ্র পরিবর্তনের আবেদন গ্রহণ শুরু করেছে ঢাকা বোর্ড। এদিকে শিক্ষাবোর্ড থেকে এইচএসসি পরীক্ষার নতুন কেন্দ্র স্থাপন ও কেন্দ্র পরিবর্তনের আবেদন আহ্বান করে জারি করা বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষার তালিকাভুক্ত সব কেন্দ্রকে কোভিড স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা নিতে হবে। পরীক্ষা গ্রহণের প্রস্তুতি হিসেবে কয়েক মাস আগে এইচএসসি পরীক্ষার সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রকাশ করা হয়েছে। সিলেবাস প্রকাশের পর শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনি বলেছিলেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পর ৮৪ দিন ক্লাস করিয়ে এইচএসসি পরীক্ষা নেয়া হবে। এ পরিস্থিতিতে গত ১ জুন থেকে এইচএসসির নতুন কেন্দ্র স্থাপন ও কেন্দ্র পরিবর্তনের আবেদন গ্রহণ শুরু করেছে ঢাকা বোর্ড। আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত নতুন কেন্দ্র স্থাপন ও কেন্দ্র পরিবর্তনের আবেদন গ্রহণ চলবে। নন-এমপিও কোনো প্রতিষ্ঠান বা ভাড়া বাড়িতে পরিচালিত প্রতিষ্ঠানগুলোকে নতুন কেন্দ্রের আবেদন না করতে বলেছে বোর্ড।

bd news paper
সূত্র জানায়, নতুন কেন্দ্রের জন্য আবেদন বাবদ তিন হাজার টাকা (অফেরতযোগ্য) এবং কেন্দ্র পরিবর্তনের ক্ষেত্রে এক হাজার টাকা (অফেরতযোগ্য) ফি সোনালী ব্যাংকের মাধ্যমে জমা দিতে হবে। ফি জমা দেয়ার স্লিপ আবেদনপত্রের সাথে জমা দিতে হবে।

১৩ জুন খুলছে না শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

শিক্ষাবোর্ডের দেয়া তথ্য মতে, নির্ধারিত সময়ের পর আবেদন গ্রহণ করা হবে না। ইতঃপূর্বে যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষার নতুন কেন্দ্র বা কেন্দ্র পরিবর্তনের জন্য আবেদন করেছে তাদেরকে আবার আবেদন করতে হবে। অসম্পূর্ণ আবেদনপত্র গ্রহণ করা হবে না। নতুন কোনো ভেনুতে কেন্দ্র দেয়া হবে না।

Leave a comment