ভোলার তজুমদ্দিন উপজেলায় পেটের ব্যথা সহ্য করতে না পেরে রুনা বেগম (২০) নামের এক গৃহবধূ গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। সোমবার (১৪ জুন) বেলা ১১টার দিকে ভোলার তজুমদ্দিন উপজেলার চাঁদপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের দেওয়ানপুর গ্রামের বাবার বাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। স্থানীয়রা জানান, তজুমদ্দিন উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নের ইন্দ্রনারায়ণপুর গ্রামের মাহমুদুল হাসানের সঙ্গে ৭-৮ মাস আগে রুনার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই রুনা বাবার বাড়ি থাকতেন। বিয়ের আগ থেকেই রুনার পেটে ব্যথা ছিল।

বিভিন্ন চিকিৎসক দেখালেও রোগ ভালো হয়নি। রোববারও (১৩ জুন) রুনার প্রচণ্ড পেটের ব্যথা শুরু হয়। সোমবার সকালের দিকে নিজের রুমের আড়ার সঙ্গে রুনার ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পান পরিবারের সদস্যরা। পরে পুলিশ এসে মরদেহ উদ্ধার করে। তজুমদ্দিন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম জিয়াউর হক জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, গৃহবধূ রুনা আত্মহত্যা করেছেন। নিহতের পরিবারেরও দাবি, পেটের ব্যথা সহ্য করতে না পেরে তিনি আত্মহত্যা করেছেন। তবে বিষয়টি তদন্ত চলছে।

Leave a comment