1. mdmf@gmil.com : আশিষ আচার্য্য : আশিষ আচার্য্য
  2. asrapur121@gmail.com : আশরাফুর রহমান ইমন : আশরাফুর রহমান ইমন
  3. borhanuddin121@gmail.com : বোরহানউদ্দিন প্রতিনিধি : বোরহানউদ্দিন প্রতিনিধি
  4. admin@bholatimes24.com : Bhola Times | Online Edition : Bhola times Online Edition
  5. ssikderreport@gmail.com : চরফ্যাশন প্রতিনিধি : চরফ্যাশন প্রতিনিধি
  6. dowlatkhan@gmail.com : দৌলতখান প্রতিনিধি : দৌলতখান প্রতিনিধি
  7. easin21@gmail.com : ইয়াছিনুল ঈমন : ইয়াছিনুল ঈমন
  8. gourabdas121@gmail.com : গৌরব দাস : গৌরব দাস
  9. hasanpintu2010@gmail.com : লালমোহন প্রতিনিধি : লালমোহন প্রতিনিধি
  10. hasnain50579@gmail.com : HASNAIN AHMED : MD HASNAIN AHMED
  11. iqbalhossainrazu87@gmail.com : ইকবাল হোসেন রাজু : ইকবাল হোসেন রাজু
  12. iftiazhossen5@gmail.com : ইসমাইল হোসেন ইফতিয়াজ : ইসমাইল হোসেন ইফতিয়াজ
  13. mdmasudalom488@gmail.com : Afnan masud : Afnan masud
  14. mnoman@gmail.com : এম,নোমান চৌধুরী : এম,নোমান চৌধুরী
  15. monpura@gmail.com : মনপুরা প্রতিনিধি : মনপুরা প্রতিনিধি
  16. najmu563@gmail.com : নাজমুল মিঠু : নাজমুল মিঠু
  17. najrul125@gmail.com : নাজরুল ইসলাম সৈারভ : নাজরুল ইসলাম সৈারভ
  18. news.bholatimes1@gmail.com : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
  19. news.bholatimes@gmail.com : News Room : News Room
  20. nirob121@gmil.com : ইউসুফ হোসেন নিরব : ইউসুফ হোসেন নিরব
  21. abnoman293@gmail.com : এম নোমান চৌধুরী চরফ্যশন প্রতিনিধি : এম নোমান চৌধুরী চরফ্যশন প্রতিনিধি
  22. nhohechowdhury@gmail.com : OHE CHOWDHURY NAHID : OHE CHOWDHURY NAHID
  23. mdmasudaom488@gmil.com : তজুমদ্দিন প্রতিনিধি : তজুমদ্দিন প্রতিনিধি
  24. sanjoypaulrahul11@gmail.com : sanjoy pal : sanjoy pal
  25. sohel123@gmail.com : সোহেল তাজ : সোহেল তাজ
  26. btimes536@gmail.com : সৌরভ পাল : সৌরভ পাল
  27. bholatimes2010@gmail.com : স্টাফ রিপোর্টার : স্টাফ রিপোর্টার
সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৫:৪৮ পূর্বাহ্ন

ভোলায় ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ, হতাশা নিষেধাজ্ঞার খবরে জেলেরা ।

রির্পোটার
  • সময়: মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১

ডেস্ক রিপোর্ট,

দৈনিক ভোলা টাইমস::  দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর ভোলার মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীতে জেলেদের জালে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে রুপালি ইলিশ। এতে করে জেলেদের মুখে হাসি ফুটে উঠেছে। মৌসুমের শুরুতে ইলিশের দেখা না মিললেও এখন তারা ইলিশ নিয়ে ঘাটে ফিরছে। মাছ ঘাটগুলোতে ফিরেছে কর্ম চাঞ্চল্যতা। এভাবে মাছ ধরা পড়লে বিগত দিনের ধার দেনা পরিশোধ করে লাভবান হতে পারবে বলে আশা করছে জেলে ও আড়তদাররা। তবে আগামী ৪ অক্টোবর থেকে মা ইলিশ রক্ষা অভিযানের নিষেধাজ্ঞার কারণে হতাশ মৎসজীবীরা।ভোলার বিভিন্ন মাছঘাট ঘুরে জানা গেছে, দেশে ইলিশের চাহিদার প্রায় ৩৩ ভাগ উৎপাদন হয় নদী ও সাগর বেষ্টিত উপকূলীয় জেলা ভোলা থেকে। কিন্তু ইলিশের ভরা মৌসুম শুরুর পর থেকে গেল দুই মাস ভোলার মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীতে ইলিশের সংকট দেখা দেয়। এসময় চরম বিপাকে পড়েন ভোলার দেড় লক্ষাধিক জেলে। কিন্তু গত দুই সপ্তাহ ধরে মেঘনা-তেঁতুলিয়া নদী ও বঙ্গোপসাগর মোহনায় জেলেদের জালে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ। মাছ ধরা পড়ায় সরগরম হয়ে উঠেছে মৎস্য আড়তগুলো। কিছুদিন আগেও যেসব মাছঘাটগুলোতে সুনশান নিরবতা ছিল, এখন সেখানে ক্রেতা ও আড়তদারদের হাকডাকে মুখরিত হয়ে উঠেছে। বেড়ে গেছে জেলে আড়তদার মহাজনদের ব্যস্ততা। পাশাপাশি জেলে পল্লীতে দেখা দিয়েছে উৎসব আমেজ।

ভোলা সদর উপজেলার নাছির মাঝি এলাকার জেলে সুজন মাঝি ও এছাক মিয়া জানান, গত ১০/১২ দিন ধরে জালে কাঙ্ক্ষিত ইলিশের দেখা মিলেছে। এভাবে তারা মাছ পেলে পেছনের ধার দেনা পরিশোধ করে লাভের মুখ দেখবে। ইলিশা চডারমাথা মাছ ঘাটের মাছের পাইকারি আড়তদাররা ইসমাইল বেপারি জানান, তারা প্রচুর মাছ মোকামে পাঠাচ্ছে। সেখানে দামও ভালো পাচ্ছে। এভাবে মাছ ধরা পড়লে মহাজনের দাদনের টাকা পরিশোধ করা সম্ভব হবে।

তবে ইলিশ ধরা পড়লেও স্বস্তি নেই জেলেদের। কারণ ভরা মৌসুমে বেশি মাছ ধরার আশায় ধার দেনা করে মাছ ধরতে নেমেছেন তারা। অথচ আগামী ৪ অক্টোবর থেকে ২২দিনের জন্য মা ইলিশ রক্ষায় নদীতে সব ধরনের মাছধরার উপর নিষেধজ্ঞা দিয়েছে মৎস্য বিভাগ। এতে জেলে এবং মাছ ব্যবসায়ীদের মধ্যে কিছুটা হতাশা নেমে এসেছে। তাই জেলে এবং মাছ ব্যবসায়ীদের কথা চিন্তা করে নিষেধাজ্ঞার সময়সীমা পরিবর্তনের দাবি তাদের।

সদর উপজেলার তুলাতলী মাছঘাটে জেলে সাজল মাঝি ও হাফেজ পাটোয়ারী জানান, চলতি মৌসুমে গত ৬ মাস নদীতে ইলিশের দেখা মিলেনি। গত দুই সপ্তাহ ধরে জেলেদের জালে ইলিশ ধরা পড়ছে। এক মাস আগেও ভোলার নদ-নদী ছিল ইলিশ শূন্য। এখন জেলেদের জালে কাঙ্ক্ষিত ইলিশ ধরা পড়ছে। এতে করে জেলেদের মধ্যে আনন্দ দেখা গেলেও মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা নিয়ে তারা শঙ্কা প্রকাশ করেন। মাছ ধরায় অবরোধ পিছিয়ে না দিলে সমিতির কিস্তি শোধ করা কষ্টসাধ্য হবে বলেও জানান তারা।

ভোলা সদর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকতা মো. জামাল হোসাইন জানান, দেরিতে হলেও জেলেদের জালে কাঙ্খিত ইলিশের দেখা মিলছে। এতে ইলিশের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হবে।জামাল হোসাইন আরও জানান, অক্টোবর মাস হচ্ছে ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুম। এই মাসে পূর্ণিমা আমাবস্যাকে কেন্দ্র করে মা ইলিশ সাগর থেকে নদীতে ডিম ছাড়তে আসে। তাই মা ইলিশ নদীতে ডিম ছাড়া শেষে জেলেদের জালে আবারও কাঙ্খিত ইলিশের দেখা মিলবে।জেলা মৎস্য অফিস কার্যালয় সূত্র জানায়, গেল অর্থবছরে ভোলায় ১ লাখ ৭৫ হাজার ৩৯০ মে. টন ইলিশ উৎপাদন হয়েছে। যা দেশের মোট ইলিশ উৎপাদনের মধ্যে ৩৩ ভাগ। চলতি অর্থবছর ইলিশ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা হচ্ছে ১ লাখ ৭৭ হাজার ৩৯০ মে. টন। মৌসুমের প্রথম ৩ মাসেই ধরা পড়েছে প্রায় ৫২ হাজার মে. টন ইলিশ।

শেয়ার করুন:

আরো সংবাদ:
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৪ - ২০২১ © এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ।
Developer By Zorex Zira