অবহেলিত ভোলা-৩ আসনকে মডেল উপজেলা হিসেবে গড়ে তুলেছে- এমপি শাওন

 

মেহেদী হাসান মামুন।

দৈনিক ভোলা টাইমস্ ॥ লালমোহন ও তজুমদ্দিন নিয়ে গঠিত ভোলা-৩ আসন। এক সময় এটি সন্ত্রাসী জনপথ হিসেবে চিহ্নিত ছিল। তবে অতীতের সে অবস্থা এখন বদলেছে। লালমোহন ও তজুমদ্দিনে বিষ্ময়কর উন্নয়ন এখন দৃশ্যমান।

নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন এ আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর শতাধিক প্রকল্পে প্রায় হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড চলছে লালমোহন ও তজুমদ্দিনে। উন্নয়নের এ ধারাকে বৈল্পবিক ও যুগান্তকারী বলে মন্তব্য করেছেন পর্যবেক্ষক মহল।

উন্নয়ন বিশ্লেষকদের মতে, লালমোহন ও তজুমদ্দিন উন্নয়নের মহাসড়কে ১০০ বছর এগিয়ে গেছে। শুধু তাই এমপি নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন নতুন প্রজন্মের মাঝে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযোদ্ধের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরার জন্য লালমোহন উপজেলায় ব্যক্তিগত উদ্যোগে গড়ে তুলেছেন সজীব ওয়াজেদ জয় ডিজিটাল পার্ক। আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে উন্নয়ন হয়; তারই রোল মডেল লালমোহন ও তজুমদ্দিন উপজেলা।

আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাকর্মীরা জানান, নুরুন্নবী চৌধুরী শাওনের প্রতিদ্বন্দ্বী একমাত্র বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর হাফিজ। তার আর কোনো বিকল্প নেই। সরকারের উন্নয়ন ধারা প্রচারে এমপি শাওন নিবেদিত প্রাণ। সর্বস্তরের জনগণের সঙ্গে তিনি উন্নয়ন স্বপ্ন ফেরি করে ফিরছেন। স্বপ্নের লালমোহন ও তজুমদ্দিন রূপায়নে তিনি স্মার্ট বাংলাদেশের আদলকে স্থানীয় গণ্ডিতে কাজে লাগাচ্ছেন। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে পথ চলছেন তিনি।

আগামী নির্বাচনে ভোলা-৩ আসনে যে সমীকরণ চলছে, সেটা আওয়ামী লীগ ও নুরুন্নবী চৌধুরী শাওনের সমর্থনে মেরুকরণ। এখানকার রাজনৈতিক অগ্রযাত্রায় আওয়ামী লীগই আজ ও আগামীর জনপ্রিয় দল। এর কোনো বিকল্প নেই।