ভোলার মাদক চক্রের সাথে এক হয়ে পুলিশের ভাবমুর্তি নষ্টের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত কে এই ফরিদুল ইসলাম(ভিডিও সংযুক্ত)

আশিষ আর্চায্য, ॥

দৈনিক ভোলাটাইমস্ :: ভোলার মাদক বিরোধী অভিযানের যে ধারাবাহিকতা অব্যহত রয়েছে এবং প্রশাসনের ভাবমুর্তি প্রশ্নবিদ্ধ করতে মাদক চক্রের সাথে এক হয়ে ফরিদুল ইসলাম নামের এক সাংবাদিক নামধারি জনৈক ব্যাক্তি সোসাল মিডিয়া ফেসবুকে কিছুদিন পর পর ভোলার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীদের দিয়ে মিথ্যে ও ভিত্তিহীন তথ্য পরিবেশন করে সাধারন জনগনকে বিভ্রান্ত করছে এবং ভোলার প্রশাসনের ভাবমুর্তি নষ্টের ষড়যন্ত্রে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে ফরিদুল ইসলাম ও মাদকচক্র এই ভন্ড ও প্রতারককে আইনের আওতায় এনে কেন শাস্তি দিচ্ছে না প্রশাসন এমনটাই ক্ষোভ প্রকাশ করেন সচেতন নাগরিক বৃন্দ । মাদকের ছোবলে যখন ভোলার তরুন প্রজন্ম পথভ্রষ্ঠ হওয়ার পথে ঠিক তখনই ভোলার সুযোগ্য পুলিশ সুপারের আগমন ঘটে । তিনি শক্ত হাতে মাদককে নির্মুল করার জন্য ডিবির ওসি শহিদুল ইসলামকে মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনার জন্য নির্দেশ দেন তার নির্দেশের সাথে একাত্ততা ঘোষনা করে যে মাদক বিরোধী সফল অভিযান শুরু হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে ভোলার মাদক ব্যবসায়ীরা কোনঠাসা হয়ে পড়ে । ঠিক তখনই ঐ মাদক ব্যবসায়ীরা ষড়যন্ত্রের জাল বুনতে শুরু করে ডিবির ওসি শহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে।

তারই পরিপ্রেক্ষিতে মাদক ব্যবসায়ীদের দিয়ে ফরিদুল ইসলাম একে একে তিনটি ভিডিও ফেসবুকে প্রকাশ করে সামাজিক ভাবে ডিবির ওসি শহিদুল ইসলাম কে প্রশ্নবিদ্ধ করতে সর্বাত্তক প্রচেষ্টা চালায় ফরিদুল ইসলাম । এই বিষয়টি যখন সচেতন গনমাধ্যাম কর্মীদের চোখে পড়ে তখন তারা ষড়যন্ত্রের অন্তরালে কি রয়েছে তা খুজতে শুরু করে । তখনি বেড়িয়ে আসে মূল রহস্য । আজ থেকে বেশ কিছুদিন আগে ফরিদুল ইসলামের নামে চাদাবাজির অভিযোগে ভোলা নতুন বাজারে অবস্থিত নিরালা হোটেল থেকে এক পতিতা নারীসহ ডিবির হাতে আটক হন তিনি । একাধিক বিবাহ করা সত্যেও তিনি পতিতা নারীসহ গ্রেফতার হন। বেশ কিছুদিন জেল খাটার পড়ে মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে এক হয়ে ডিবির ওসির উপর প্রতিশোধ নিতে শুরু এই অভিনব ষড়যন্ত্র । যে তিনটি মিথ্যে ভিডিও প্রকাশের মাধ্যমে তাকে সরাতে চেয়েছিল ওসির পথ থেকে অবশেষে তার সত্যতা প্রকাশ পায় ফেসবুকে এবং তার ষড়যন্ত্রের তিনটি ভিডিওই মিথ্যে প্রমাণিত হয় । মাদক কারবারিদের ছত্রছায়ায় কিছুদিন গা ঢাকা দিয়ে থাকার পড় গতকাল রবিবার ভোলা টাইম্স পত্রিকার প্রকাশকের নামে মিথ্যে ভিত্তিহীন বানোয়াট অভিযোগ তুলে আবারো ডিবির ওসি শহিদুল ইসলামকে জড়িয়ে ষড়যন্ত্র শুরু করেন । দৈনিক ভোলা টাইমস্ পরিবার এই মিথ্যে বানোয়াট ভিত্তিহীন অভিযোগের নিন্দা জানান এবং ওই নামধারী মাদক ব্যবসায়ীদের প্রেতাত্তার সাথে কি কথা হয়েছিল জানতে চাইলে ভোলা টাইমস্ প্রকাশক মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ রাজিব বলেন ভোলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার একজন সৎ ও আদর্শবান পুলিশ । যে মানুষটি ভোলা জেলা সকল পুলিশ পরিবারের অভিবাভক সেই পরিবারের কোন সদস্যকে নিয়ে মাদক ব্যবসায়ীদের মত সমাজের ঘৃন্নিত ব্যক্তিরা কোন ধরনের বিতর্কিত প্রশ্ন তুলে ধরে সম্মানহানী করতে না পাড়ে সেই কথা বিবেচনা করে তার সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা মাত্র । কি কথা হয়েছিল শুনতে চোখ রাখুন ভোলা টাইমস্ অনলাইনে ।

Facebook Comments