চরফ্যাশনে পালিত পুত্রের নির্যাতনের শিকার বাবা মা!

পালিত পুত্রের নির্যাতনের শিকার বাবা ও মা! এমনটাই ঘটেছে ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার আলিগাঁ ২নং ওয়ার্ডে।

পালিত একমাত্র পুত্র ইব্রাহীম (৩৬) কর্তৃক নির্যাতনের কথা বাবা আমির হোসেন মুখ খুলে বলতে না চাইলেও মা নুরজাহান বেগমের চোখ ভেসে গিয়েছে চোখের নোনা জলে। মা নুর জাহান বেগম অশ্রæশিক্ত নয়নে বাকরুদ্ধ হয়ে ঠায় বসে থাকেন ঘরের এককোনে।

এমন ঘটনার অভিযোগ শুনতে সংবাদকর্মীরা বাড়িতে গেলে তাদের জড়িয়ে ধরে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন মা নুরজাহান বেগম। তিন্নি কান্না কন্ঠে বলেন, মাত্র ২১দিনের দুধের শিশুকে এনে লালন পলন করে বড় করেছি। ধুমধাম করে বিবাহ দিয়ে বৌও এনে দিয়েছি। ইব্রাহীমের পিতা আলহাজ্জ আমির হোসেন পাটোয়ারি দির্ঘ ১৭ বছর সৌদিতে প্রবাসি হিসেবে চাকুরি ও ব্যবসার সাথে জড়িত ছিলেন। সৌদি প্রবাসী পিতা আমির হোসেন পাটোয়ারির সাড়া জীবনের আয় রোজগার সহ প্রায় ১০ কোটি টাকার ব্যবসা বানিজ্য ইব্রাহীমকে বুঝিয়ে দিলে তা তছনছ করে দেন মাদকাসক্ত পুত্র ইব্রাহীম এমন অভিযোগ করেন মা নুর জাহান বেগম।

তিনি আরও জানান, ইব্রাহীম সৌদি গিয়ে বাবার ব্যবসার টাকা পয়সা দিয়ে ঢাকা,কুমিল্লাসহ বিভিন্ন যায়গায় স্ত্রী’র পরামর্শে জমি-জমা ক্রয় করেছেন। এছাড়াও ইব্রাহীমকে চরফ্যাশনের হ্যালিপেড এলাকায় ১২লাখ টাকায় ৮শতাংশ জমি কিনে দিলে সে দেশে আসার পরে ওই জমি বিক্রি করে দেয় এবং মাদক ব্যবসার সাথে জড়িয়ে ও দৈনিক মাদক সেবন ছাড়াও জুয়া খেলে ওই টাকা তছরুফ করে দেয়। বাড়িতে থেকে প্রতিদিন বাবা আমির হোসেন ও মা নুর জাহান বেগমকে মারধর ও ঘরদরজাসহ আসবাবপত্র ভেঙ্গে তছনছ করে দিচ্ছে বলেও জানান মা নুর জাহান। সম্প্রতী আসলামপুর ইউনিয়নের আলীগাঁ দুই নং ওয়ার্ডের বসতবাড়িটি প্রায় ১কোটি টাকা মূল্যের বাড়িটি বিক্রি করে ঢাকায় চলে যাওয়ার চেষ্টা করছে যার অর্ধেক মালিকানা মা নুর জাহান বেগমের নামে এমনটাই জানান পিতা আমির হোসেন ও মা নুরজাহান বেগম।

আমির হোসেন পাটোয়ারি জানান, ছেলে ইব্রাহীমের অযাচিত জীবন যাপন ও পিতামাতাকে অত্যাচার নির্যানের বিষয়ে লজ্জায় কারো কাছে মুখ খুলে বলতে পারছিনা। তার এহেন কর্মকান্ডে আমরা স্বামী স্ত্রী আজ বাড়ি ছাড়া। স্থানীয় এলাকাবাসিরা কুলাঙ্গার সন্তান ইব্রাহীমের বিচার দাবি করে বলেন, কারো ঘরে যেন এমন কুলাঙ্গার সন্তান না হয়।

এই মাদকাশক্ত কুলাঙ্গারের আমারা যথাযথ বিচার ও উপযুক্ত শাস্তি দাবি করছি।

এঘটনায় চরফ্যাশন থানার এসআই পনির খান বলেন, মা,বাবাকে নির্যাতনের ঘটনায় মা নুরজাহান বেগম থানায় একটি অভিযোগ করলে ইব্রাহীমকে পুলিশ আটক করে থানায় আনা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ আইনি প্রক্রিয়ায় কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

Facebook Comments