ভোলা টাইমস্ ডেস্ক ॥

কোভিড-১৯ সংক্রমণের জন্য দায়ী সার্স-কোভ-২ ভাইরাস (সিভিয়ার অ্যাকিউট রেসপাইরেটরি সিনড্রোম করোনাভাইরাস ২) মস্তিষ্কের টিস্যু এবং করটেক্স কাঠামো ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। মস্তিষ্কের এ এলাকায় স্মৃতিশক্তি, সচেতনতা ও ল্যাঙ্গুয়েজ কার্যক্রম পরিচালিত হয়। বৃহস্পতিবার প্রকাশিত ব্রাজিলিয়ান এক গবেষণা রিপোর্টে এ কথা বলা হয়।-খবর বাসসের ইউনিভার্সিটি অব ক্যাম্পিনাসে (ইউনিক্যাম্প) জীবতত্ত্ব ইন্সটিটিউটের প্রফেসর ড্যানিয়েল মার্টিনস ডি সুজা বলেছেন, আমরা প্রথমবারের মতো দেখলাম যে সার্স-কোভ-২ অ্যাস্ট্রোসাইটে প্রতিলিপি তৈরি করতে পারে এবং এটি নিউরনের কার্যকারিতা হ্রাস করতে পারে।

সমীক্ষায় দেখা যায়, করোনাভাইরাস অ্যাস্ট্রোসাইটকে প্রভাবিত করতে পারে, কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্রের প্রচুর কোষ নিষ্ক্রীয় করে। যেসব কোষ নিউরনের সমর্থন জোগায়, পুষ্টি সরবরাহ করে, নিউরোট্রান্সমিটার নিয়ন্ত্রণ করে, অন্যান্য উপকরণ যেমন পটাশিয়াম সরবরাহ করে। এতে বলা হয়, কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া ২৬ জনের মস্তিষ্কের টিস্যু নিয়ে পরীক্ষা করে এই ফল পাওয়া যায়। মার্টিনস সুজা জানান, ইমিউনোহিস্ট্রোকেমিস্ট্রি নামে পরিচিত প্রযুক্তি ব্যবহার করে তিনি এই সংক্রমণ শনাক্ত করেন। এ প্রক্রিয়ায় টিস্যুতে এন্টিজেনের মাত্রা নিরূপণে অ্যান্টিবডি ব্যবহার করা হয়।

টেস্টে ওই ২৬ জনের নমুনায় ভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত করা হয় এবং এর মধ্যে ৫ জনের নমুনায় কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্র ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার প্রমাণ পাওয়া গেছে। হালকা কোভিড আক্রান্ত অপর ৮১ রোগীর নমুনা পরীক্ষা করে দেখা যায়, এদের এক-তৃতীয়াংশ স্নায়ুবিক অথবা নিউরোসাইকিয়াট্রিক লক্ষণ যেমন স্মৃতিশক্তি হ্রাস, ক্লান্তি, মাথাব্যথা, উদ্বেগ এবং অন্যান্য সমস্যা দেখা দিয়েছে।ন্যাশনাল ল্যাবরেটরি অব বায়োসায়েন্সেস, ফেডারেল ইউনিভার্সিটি অব রিওডি জেনিরো এবং ডিওর ইন্সটিটিউটের বিজ্ঞানীদের সমন্বয়ে ইউনিক্যাম্প এবং ইউনিভার্সিটি সাও পাওলোর (ইউএসপি) বিজ্ঞানীরা এ গবেষণা পরিচালনা করেন।

Leave a comment