ভোলার মনপুরায় নিজ বাড়িতে একা পেয়ে ৮ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের চেস্টার অভিযোগে একজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন ওই শিশুটির মা মিনারা বেগম। এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত ধর্ষণ চেস্টার আসামীকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। পুর্বে স্থানীয়ভাবে বিষয়টি ধামাচাপা দিতে শালিসী বৈঠক হয়। ওই বৈঠকে স্থানীয় প্রভাবশালীরা ধর্ষণ চেষ্ঠায় অভিযুক্ত রিপন মাঝিকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও ৫০ বেত নির্ধারন করে।

কিন্তু শালিসীতে দুই বেত দেওয়া হলেও ৫০ হাজার টাকা দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন শিশুটির মা মিনারা বেগম। ঘটনাটি গত শুক্রবার দুপুরে উপজেলার হাজিরহাট ইউনিয়নের চৌধুরী বাজার সংলগ্ন ওই শিশুটির বাড়িতে ঘটে। পরে রবিবার সকালে শিশুটির মা বাদী হয়ে রিপন মাঝি (৪৫) নামে থানায় মামলা দায়ের করে। শিশুটির চাচা জহির জানান, শুক্রবার দুপুরে পুকুরে গোসল করতে গেলে রিপন মাঝি সহ শিশুটিকে একসাথে ঘরের ভিতরে দেখতে পাই। তখন রিপন মাঝিকে জিজ্ঞাসা করতেই রিপন মাঝি পা ধরে ক্ষমা চায়।

পরে আমার ভাবিকে কেন শিশুটিকে একা ঘরে রেখে গেছে তার জন্য রাগ করি। শিশুটির মা মিনারা বেগম জানান, শুক্রবার দুপুরে দুই মেয়েকে রেখে পাশের বাড়িতে যান। এই সুযোগে রিপন মাঝি ঘরে ডুকে বড় ৮ বছরের মেয়ের সাথে জোর পূর্বক ধর্ষণের চেষ্ঠা করে। পরে আমার চাচাতো দেবর জহির পুকুরে গোসল করতে আসলে ঘটনাটি দেখে। পরে স্থানীয়ভাবে শালিসীতে রিপন মাঝিকে ৫০ হাজার টাকা ও ৫০ বেত নির্ধারন করে।

কিন্তু দুই বেত দেওয়া হলেও ৫০ হাজার টাকা দেয়নি। পরে রবিবার থানায় মামলা করি। এ বিষয়ে মনপুরা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাখাওয়াত হোসেন জানান, এক শিশুকে ধর্ষণচেষ্ঠায় থানায় মামলা হয়েছে। আসামীকে ধরতে পুলিশি অভিযান চলছে।

Leave a comment