টানা ২২ দিনে মা ইলিশ ধরার সরকারি নিষেধাজ্ঞা শেষ হচ্ছে আজ রাত ১২ টায়। ভোলা সদর উপজেলা কাচিয়া,ইলিশা, রাজাপুরে জেলে পল্লীর জেলে জাকির মাঝী, ইসমাইল মাঝী, গিয়াসউদ্দিন মাঝী বলেন, এত দিন আমরা ধারদেনা করে আমাদের সংসার চালিয়েছি, সরকারের ২২ দিনের অভিযানে মা ইলিশ নিষেধাজ্ঞা শেষে আবার ইলিশ শিকারে আমরা প্রস্তুতি নিচ্ছি,এত দিন অলস সময় পার করে আবার আমরা আমাদের কর্ম জীবনে জীবিকা নির্বাহের জন্য মাছ শিকারে যাবো এতে আমরা অনেক আনন্দ অনুভব করছি।

কারন ২২ দিন অনেক কস্ট করে সংসার চালিয়েছি, যদিও এই অভিযানের মধ্যে সরকার আমাদেরকে জেলে কার্ডের ২০ কেজি করে চাউল দিয়েছে,এতে করে আমাদের পরিবারের অনেক দুর্ভোগ কমেছে । এদিকে গত ২১ দিনের অভিযানে বরিশাল বিভাগে ৯৮৭টি মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে অবৈধভাবে মাছ শিকারের দায়ে ১ হাজার ১৭৪টি মামলা দায়ের করা হয়।

এসব মামলায় ১ হাজার ৫৯ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারা ও অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। অর্থদণ্ডের মাধ্যম মোট ১৭ লাখ ৪৩ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। অভিযানে মোট ৭৮ লাখ মিটার কারেন্ট জাল এবং ৯ হাজার ৫০০ কেজি ইলিশ মাছ উদ্ধার করা হয়। জেলা মৎস্য অফিসের কর্মকর্তা আজহারুল ইসলাম জানান, গত বছরের তুলনায় এবার নদীর পরিবেশ ভাল ছিল।

এবার যে পরিমাণ মা ইলিশ ডিম অবমুক্ত করার সুযোগ পেয়েছে তাতে এবার ইলিশের উৎপাদন আরও বৃদ্ধি পাবে। প্রজনন মৌসুম সফল হওয়ায় এ বছর ৪ লাখ মেট্রিক টন ইলিশ আহরণ করা সম্ভব হবে । তিনি আরো জানান মা ইলিশ রক্ষায় মৎস্য অধিদপ্তরের নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ায় বুধবার রাত ১২টার পর থেকে জেলেদের নদীতে মাছ শিকারে কোন বাঁধা নেই বলে জানিয়েছেন মৎস্য অফিস। বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার অমিতাভ সরকার জানান, অভিযানের সময়ে বিভাগের ২ লাখ ৮২ হাজার জেলে পরিবারকে ২০ কেজি করে চাল প্রদান করা হয়েছে। জেলেরা সচেতন হওয়ায় এবার নিষেধাজ্ঞাকালীন তারা নদীতে মাছ শিকারে নামেনি। এ কারণে এবার ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধি হবে বলে আশাবাদী তিনি।

Leave a comment